কাউখালী জেলা শাখা ৬ষ্ঠ সম্মেলন -২০১৫

By on January 31, 2016
BMP Organization 1

সমতার জন্য চাই সমান সুযোগ

১৮ ডিসেম্বর ২০১৫ তারিখ বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে কাউখালী জেলা শাখার ৬ষ্ঠ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে কেন্দ্রীয় কমিটির প্রতিনিধি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি ডা. ফওজিয়া মোসলেম এবং কেন্দ্রীয় কমিটির স্বাস্থ্য সম্পাদক নূরুল ওয়ারা বেগম এবং কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এবং বরিশাল জেলা শাখার সভাপতি পুষ্প চক্রবর্তী ।
সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ কাউখালী জেলা শাখার সভাপতি জাহানূর বেগম। উদ্ধোধনী অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন কাউখালী জেলা শাখার তরুনী সদস্য প্রিয়ংবদা ভট্টাচার্য।
বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি ডাঃ ফওজিয়া মোসলেম ৬ষ্ঠ কাউখালী জেলা সম্মেলনের উদ্ধোধন ঘোষণা করেন। জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি ডা. ফওজিয়া মোসলেম জাতীয় পতাকা এবং সংগঠনের কাউখালী সাংগঠনিক জেলা শাখার সভাপতি জাহানূর বেগম সংগঠনের পতাকা উত্তোলন করেন। এর পর ডা. ফওজিয়া মোসলেম উদ্ধোধন ঘোষনা করেন। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ কাউখালী সাংগঠনিক জেলা শাখার স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনায় সংক্ষিপ্ত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এর পরে সম্মেলন স্থল থেকে শুরু হয়ে শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ঘুরে একটি সুসজ্জিত র‌্যালী কাউখালী উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এসে শেষ হয়। র‌্যালীতে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক তরুনী সদস্য অংশগ্রহণ করেন। র‌্যালীটি শহরের সাধারণ মানুষের মধ্যে দারুন সাড়া ফেলে যার দরুন কিছু সংখ্যক তরুনী রাস্তা থেকে মহিলা পরিষদের সম্মেলনের র‌্যালীতে অংশগ্রহণ করে।

BMP Organization 2

সম্মেলনের এই পর্বে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ কাউখালী জেলা শাখার সভাপতি জাহানূর বেগম। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির স্বাস্থ্য সম্পাদক নূরুল ওয়ারা বেগম, কাউখালী উপজেলা চেয়ারম্যান জনাব এস. এম. আহসান কবীর, ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল কালাম, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ বরিশাল জেলা শাখার সভাপতি পুষ্প চক্রবর্তী, কাউখালী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ কামরুজ্জামান মিঠু, কাউখালী উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা ইয়াসমিন, কাউখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, কাউখালী সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনূর রশিদ মিল্টন, ২নং আমড়াজুড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কৃষ্ণলাল গুহ, ৫নং শিয়ালকাঠি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সিকদার মোহাম্মাদ দেলোয়ার হোসেন, ১নং সয়না রঘুনাথপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ আবু সাঈদ মিয়া, বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি কাউখালী উপজেলার সভাপতি সুব্রত রায়, ঝালকাঠি জেলা সদরের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ইসরাত জাহান সোনালী, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ পিরোজপুর জেলা শাখার সভাপতি মনিকা মন্ডল, সরূপকাঠি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মীরা চৌধুরী ও সদস্য নাজমা বেগম। এই অধিবেশন যৌথভাবে পরিচালনা করেন মহিলা পরিষদ কাউখালী জেলা শাখার সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সুলতানা নীলা এবং জেলার তরুনী সদস্য প্রিয়ংবদা ভট্টাচার্য।

BMP Organization 3
অধিবেশনের শুরুতে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ কাউখালী জেলা শাখার সাংস্কৃতিক সম্পাদক অর্চনা মূখার্জীর নেতৃত্ব শাখার শিল্পীরা নারী জাগরণ মূলক গান পরিবেশন করেন। সাংস্কৃতিক পরিবেশনার পরে শোক প্রস্তাব উত্থাপন করেন কাউখালী জেলা শাখার কার্যকরী কমিটির সদস্য মণীষা হাওলাদার।
এরপর শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন কাউখালী জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সুনন্দা সমাদ্দার। তিনি শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ করেন কাউখালী অঞ্চলের সর্বজন শ্রদ্ধেয় নারী অধিকার বিষয়ে স্বোচ্চার ব্যক্তিত্ব প্রয়াত ঋষিকেশ ভট্টাচার্যকে। নারীর জন্য বাসযোগ্য সমাজ গড়ে তোলার অঙ্গিকার ব্যক্ত করে ভবিষতে আরো শক্তিশালী সংগঠন গড়ে তোলার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি। শুধু দক্ষিণ অঞ্চল নয় সারা বাংলাদেশে নারীর অধিকার রক্ষার আন্দোলনে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ সকলের নিকট বাতিঘর হয়ে সবচেয়ে উজ্জল নক্ষত্র হিসাবে জ্বলজ্বল করছে। তিনি কাউখালী অঞ্চলের সামাজিক অর্থনৈতিক রাজনৈতিক সমাজে নারী পুরুষের তুলনামূলক অবস্থান তুলে ধরেন। মহিলা পরিষদ করার কারণে এই অঞ্চলের নারীরা আজ তাদের নিজেদের কথা বলতে পারছে। তিনি বলেন, নারীর মানবাধিকার সম্পর্ণ ভাবে প্রতিষ্ঠা না হওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ তার লড়াই অব্যাহত রাখবে।

BMP Organization 4
২নং আমড়াজুড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির নেতা কৃষ্ণ লাল গুহ অধিকার বঞ্চিত মানুষের পাশাপাশি নারীর অধিকার রক্ষার সংগ্রামের কমিউসিন্ট পার্টি আর কাউখালী অঞ্চলের মানুষ সব সময় বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সাথে সমান্তরালভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নিমাই মন্ডল বলেন, জন্ম লগ্ম থেকেই বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছে। স্বাধীনতার ৪৫ বছর পরে কেন আজো এই দেশে নারীরা নির্যাতনের শিকার হয়? সমাজের দৃষ্টিভঙ্গী বদলাতে হবে সেই সাথে নারীর প্রতি পুরুষদের সহমর্মিতা ও সমর্থন অব্যাহত রাখতে হবে।
কাউখালী সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনূর রশিদ মিল্টন বলেন, বাংলাদেশের ভাল সব অর্জনের সাথে মহিলা পরিষদের সম্পর্ক আছে। মহিলা পরিষদ শুধু নারীর মানবাধিকার নয় বরং বাংলাদেশের সকল অগ্রগতি ও অগ্রযাত্রায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। ভবিষ্যতে বাংলাদেশের নারীদের অধিকার আদায়ে মহিলা পরিষদের সকল লড়াই সংগ্রামের সাথে তিনি আন্তরিক ভাবে থাকার প্রতিশ্রুতি দেন।
ঝালকাঠি সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ইসরাত জাহান সোনালী বলেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কাউখালী জেলা শাখা কেন্দ্র থেকে শুরু করে প্রত্যন্ত অঞ্চল পর্যন্ত এতো শক্তিশালী, এতো গতিশীল আর সময় উপযোগী তা সরেজমিনে দেখে শিখে নিজ জেলায় কাজে লাগানোর দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
কাউখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, নারীদের ছোট করে দেখার কিছু নেই, পুরুষের মতো তারাও স¦াভাবিক মানুষ। তিনি বলেন পুলিশে চাকরী করার দরুন তিনি এ পর্যন্ত অনেক জেলাতে গিয়েছেন কিন্তু তিনি কাউখালী মহিলা পরিষদের সাংগঠনিক অবস্থা কোথাও দেখা হয়নি। কাউখালী থেকে বাল্য বিবাহ, সন্ত্রাস ও সন্ত্রাসী এবং নারী নির্যাতনকে বিদায় করবার জন্য মহিলা পরিষদের সাথে সব ধরণের সহযোগীতা আগামীতে আরো জোড়ালো ভাবে করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

BMP Organization 5
কাউখালী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কামরুজ্জানমান মিঠু বক্তব্যের শুরুতেই বলেন বাংলাদেশ সৃষ্টির আগেই মহিলা পরিষদের জন্ম হয়েছে তাই তিনি বিশ্বাস করেন যে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ মুক্তিযুদ্ধে সরাসরি অংশগ্রহণকারী কারী দেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নারী সংগঠন। যুদ্ধ করতে করতে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ আজ এখানে এসে দাঁড়িয়েছে। নারীদের আরো যোগ্যতর হতে হবে এবং নিজেদের শক্তির প্রমাণ দিতে হবে।
পিরোজপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আহসান কবীর বলেন, সদর উপজেলায় দ্বিতীয় বারের মতো নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের জন্য। তিনি আরো বলেন, রাজনৈতিক শক্তির পিছনে রয়েছে এ অঞ্চলের অধিকার বঞ্চিত সংগ্রামী নারীদের ভূমিকা। সবাইকে সাথে নিয়ে সমাজ থেকে নারী নির্যাতন বন্ধের জন্য প্রতিটি পরিবারকে নারী নির্যাতন বন্ধের দুর্গ হিসাবে গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে তিনি বক্তব্য শেষ করেন।
মীরা চৌধুরী সদস্য কেন্দ্রীয় কমিটি বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ বলেন, ধর্ম বিশ্বাস করি কিন্তু ধর্মীয় কুসংস্কারে নয়। তিনি জানান সারা দেশে পৌর নির্বাচনের বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের অনেকেই অংশগ্রহণ করছে এরা নির্বাচিত হলে নারীর ক্ষমতায়ন বাড়বে। নারী ক্ষমতায়নের জন্য বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের হাতকে আরো শক্তিশালী করার আহ্বান জানান।
মনিকা মন্ডল সদস্য কেন্দ্রীয় কমিটি বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ বলেন, নারীর অগ্রগতি মানে দেশের উন্নয়ন। তিনি সকলের কাছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশকে গড়ে তোলার আহ্বান জানান। নারীকে নারী হিসাবে নয় পুরুষকে পুরুষ হিসাবে নয় বরং আসুন আমরা সবাই সবাইকে মানুষ হিসাবে মূল্যায়ন করি। তিনি সিডও সনদের উপর থেকে সংরক্ষিত ধারা দুটি অনতিবিলম্বে তুলে নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আবেদন জানান।
পুষ্প চক্রবর্তী সদস্যকেন্দ্রীয় কমিটি বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ বলেন, গণতান্ত্রিক, মানবিক, অসাম্প্রদায়িক, নারী পুরুষের সমতা ভিত্তিক একটি সমাজ গঠনের জন্য কাজ করে যাচ্ছে মহিলা পরিষদ। তিনি সংগঠনের বিস্তার ও শক্তিশালী ভিত্তি গড়ে তোলার জন্য তৃণমূলের সকল নারীদের নিকট আহ্বান জানান। মহিলা পরিষদের সকল সদস্যদের আরো যোগ্য ও অভিজ্ঞ করে গড়ে তুলে অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক মানবিক নারী পুরুষের সমতা ভিত্তিক সমাজ ও রাষ্ট্র গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

BMP Organization 6
নূরুল ওয়ারা বেগম স্বাস্থ্য সম্পাদক কেন্দ্রীয় কমিটি বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ বলেন, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ সাড়া দেশে ৬১টি সাংগঠনিক জেলা শাখার মাধ্যমে নারীর অধিকার আদায়ের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। তিনি আশা করেন আগামী এক বছরে সারাদেশের কম করে হলেও দশ হাজার সদস্যকে প্রশিক্ষণ এর ব্যবস্থা করতে হবে। তিনি সম্পত্তিতে নারী পুরুষের সমান অধিকারের বিষয়ে জোড়ালো দাবী উত্থাপন করেন। তিনি বলেন আমরা সংরক্ষিত নয় আমরা সরাসরি নির্বাচনের দাবী জানাচ্ছি। নির্যাতিত নারীদের পাশে দাড়ানোর অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন এবং সিডও সনদ থেকে সংরক্ষিত ধারা সমূহের উপর থেকে সংরক্ষণ প্রত্যাহারের দাবি জানান।
ডা: ফওজিয়া মোসলেম সহ সভাপতি কেন্দ্রীয় কমিটি বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ তিনি বক্তব্যের শুরুতে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন মুক্তিযুদ্ধে নাম না জানা লক্ষ শহীদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে। আরও শ্রদ্ধা জানান মুক্তিযুদ্ধে সম্ভ্রম হারানো লক্ষ নারীর প্রতি আর স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। তিনি বলেন, আমরা সারা পৃথিবীতেই দেখছি সভ্যতার উন্নতি। আর এই সভ্যতার উন্নতির পিছনে রয়েছে নারীর ঘাম শ্রম আর মেধা। আমাদের দেশে প্রতি বছরের অর্জিত বৈদেশিক মুদ্রার বেশির ভাগ অংশই আসে নারীদের শ্রমের মাধ্যমে। গার্মেন্টস, মৎস চাষ, ফসল উৎপাদনে নারীর অবদান অস্বীকার করার কোন সুযোগ আমাদের নেই। আমরা এমডিজি থেকে এখন এফডিজি পূরণের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। আমাদের উন্নতির পথে কি কি অন্তরায় আছে তা চিহ্নিত কওে সমাধানের জন্য কাজ করতে হবে। নারীর জীবনের সব থেকে প্রধান সংকট হলো নারীরা প্রতিনিয়ত নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। নারী তার নিজ মহিমায় যতটা এগিয়ে যাচ্ছে পুরুষতান্ত্রিক সমাজের দৃষ্টিভঙ্গির কারনে আবার সে পিছিয়ে যাচ্ছে। দেশে কেন এত নারী নির্যাতন হয়? কারণ পূর্বের নির্যাতনের ঘটনাগুলোতে কোন উল্লেখযোগ্য বিচার না হওয়াই নির্যাতনকারীগণ উৎসাহিত হয়। এই বিচারহীনতার সংস্কৃতি চির তরে বন্ধ করতে হবে। নারীদের জন্য সরাসরি নির্বাচনের ব্যবস্থা করলে এই সংকট অনেকখানি দুর করা সম্ভব। পৃথিবীব্যাপী সন্ত্রাসীদের প্রবল উত্থান এর কারণে নারীরা ঘরমুখী হতে বাধ্য হচ্ছে। এতে অর্থনীতির গতি কমে যাবে। বাংলাদেশে মৌলবাদের অন্যতম কারণ হলো জামাত এবং হেফাজত। এদের মোকাবেলা করার জন্য নারীদের মুখোমুখি রুঁখে দাড়াতে হবে। মহিলা পরিষদ কারো লেজুড় সংগঠন নয় তারা আন্দোলনের মাধ্যমে সংগঠিত একটি সংগঠন। সম্মেলনের মাধ্যম যে নতুন কমিটি হবে তাদের উপর নতুন দায়িত্বভার বর্তাবে। আর সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার জন্য নারীদেরকে আরো দক্ষ হয়ে গড়ে উঠতে হবে। আর এই শিক্ষা নিতে পারি কেবল মাত্র সংগঠনের কাছ থেকে।
কাউখালী জেলা শাখার সভাপতি জাহানূর বেগম সম্মেলন সফল করার জন্য কাউখালীবাসির প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। সম্মেলনের এই অধিবেশনের সমাপ্তি ঘোষনা করেন।
৩য় অধিবেশনের সভাপতিত্ব করেন জেলা শাখার সভাপতি জাহানূর বেগম। এই অধিবেশনের শুরুতে জেলা শাখার সদস্য শিল্পী সমাদ্দার সম্মেলনের ঘোষণা পাঠ করেন। সভার সভাপতি মাধ্যমে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সম্মেলনের ঘোষনা পাশ করা জন্য হাউজের মতামত চাইলে সকলে হাত তুলে তা পাশ করেন।
অধিবেশনের শুরুতে সাধারণ সম্পদক সুনন্দা সমাদ্দার লিখিত ভাবে সাধারণ সম্পাদকের রিপোর্ট তুলে ধরেন। কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য পুষ্প চক্রবর্তী আগের কমিটি বাতিল ঘোষণা করেন এবং ৩৫ সদস্য বিশিষ্ট নতুন প্রস্তাবিত কমিটির খসড়া উপস্থাপন করেন। কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি ফওজিয়া মোসলেম ৩৫ সদস্য বিশিষ্ট নব নির্বাচিত কাউখালী জেলা শাখার কার্যকরী কমিটির সদস্যদের কে শপথ বাক্য পাঠ করান। অধিবেশনের সভাপতি সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে সম্মেলনের সমাপ্তি ঘোষাণা করেন।

About mparishad

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>